Ticker

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

Responsive Advertisement

বান্দরবানে মসজিদের ইমাম হত্যার ঘটনায় শফি পুত্র শাইখুল হাদীস আনাস মাদানীর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ

সম্প্রতি বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলায় মোহাম্মদ ওমর ফারুক (৪৫) নামে এক নওমুসলিম ইমামকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে মসজিদের সামনে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।


গত শুক্রবার (১৮ জুন) রাত সাড়ে ৮টায় উপজেলার আলেক্ষ্যং ইউনিয়নের তুলা ঝিড়ি পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।


এলাকাবাসীর দাবী, আলেক্ষ্যং ইউনিয়নের তুলা ঝিড়িত পাড়ায় পাহাড়ি অঞ্চলে তিনিই সর্বপ্রথম ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। এর কারণে হয়তো তাকে শহীদ করা হয়েছে। 


তার দু'সন্তান ছোট্ট মাইমুনা ও ইবরাহীমের অশ্রু ঠেকানোর ক্ষমতা কেবল আল্লাহরই রয়েছে।

আল্লাহ তাদের সবরে জামিল দান করুক।


 তিনি ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের খৃস্টান ধর্মালম্বী ছিলেন, কয়েক বছর আগে পবিত্র ইসলাম ধর্মগ্রহণ করেন। বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলার তুলাঝিড়িতে অস্থায়ী একটি মসজিদে ইমামতির দায়িত্ব পালন করতেন।


আজ ২০ জুন বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে

আঞ্জুমানে দাওয়াতে ইসলাহের ী আমীর, শাইখুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী রাহ.'র সাহেবজাদা, শাইখুল হাদীস আল্লামা আনাস মাদানী দা.বা. বলেন, মসজিদের ইমাম শহীদ ফারুককে হত্যার সাথে জড়িত খুনীদের খুঁজে বের করে কঠোর ও দৃষ্টান্তমূূলক শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান।


একইসাথে সারাদেশে ইমাম-মোয়াজ্জিনদেরকে হত্যাসহ সব ধরণের হত্যা নির্যাতন বন্ধে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তামূলক ব্যবন্থা গ্রহনের দাবী জানান।

Post a Comment

0 Comments