Ticker

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

Responsive Advertisement

আশুলিয়ায় শ্রমিক বিক্ষোভ, পুলিশের টিয়ার শেল-জলকামানে সরে গেছে শ্রমিকেরা

সাভারের আশুলিয়ায় ঢাকা রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ এলাকার (ডিইপিজেড) কয়েকটি বন্ধ তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা একত্রিত হয়ে তাদের বকেয়া পাওনা আদায়ের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন। এ সময় শ্রমিকদের সড়ক থেকে সরিয়ে দিতে পুলিশ টিয়ার শেল ও জলকামান নিক্ষেপ করেছে বলে জানা গেছে। তবে এতে কেউ আহত হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ। বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি এড়াতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

রবিবার (১৩ জুন) সকালে পুরাতন ডিইপিজেডের সামনে নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কে বিক্ষোভ শুরু করে লিনি ফ্যাশন ও লিনি অ্যাপারেলস এর প্রায় ৪০০ শ্রমিক। পরে তাদের সঙ্গে যোগ দেন বন্ধ হয়ে যাওয়া এ ওয়ান বিডি লিমিটেড, শাইন ফ্যাশন ও এভান্ট গার্ড কারখানার শ্রমিকরা।

শ্রমিক বিক্ষোভের কারণে প্রায় দেড়ঘণ্টা মহাসড়ক বন্ধ থাকায় দুই পাশে প্রায় ৬ কিলোমিটার যানজট সৃষ্টি হয়। পরে জলকামান ও টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দেওয়া হলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।


শ্রমিক ও পুলিশ জানায়, গত ১ ফেব্রুয়ারি প্রায় ৭ হাজার শ্রমিকের ১ মাসের বেতন, শ্রমিক ছাঁটাই, টার্মিনেশন বেনিফিট না দিয়ে কারখানা বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এরপর বেতন দেওয়ার জন্য কয়েকবার তারিখ দেওয়া হলেও শুধু বেতনের ৪২ শতাংশ দিয়েছে। পরে আর পুরো বেতন দেয়নি কারখানা কর্তৃপক্ষ। আজ সকালে এসব দাবিতে ইপিজেড পুরনো জোনের প্রধান ফটকের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করতে থাকেন তারা।


শিল্প পুলিশ-১ এর পুলিশ সুপার (এসপি) আসাদুজ্জামান বলেন, ‌'খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে শ্রমিকদের বুঝিয়ে সড়ক থেকে চলে যেতে বলি। শ্রমিকরা না বুঝতে চাইলে হালকা কাঁদানে গ্যাস ও পানি ছিটিয়ে তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। বর্তমানে সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে'।


পুলিশ সুপার আরও বলেন, 'লেনি ফ্যাশন কারখানার মালিক একজন ভারতীয়। অনেক দিন আগে থেকেই করোনার কারণে মালিক ফ্যাক্টরিতে আসেন না। এখন করণীয় কিছু নাই। ফ্যাক্টরি বিক্রি করতে হবে। এই মুহূর্তে সেই প্রচেষ্টাও চলছে। এখন দ্রুত করাটাও অনিশ্চিত'।









Post a Comment

0 Comments